প্রতিবন্দী শব্দটা আমাদের শুনতে খুব খারাপ লাগে।

প্রতিবন্দী শব্দটা আমাদের শুনতে খুব খারাপ লাগে। কিন্তু যাদের নামের সাথে জন্মলগ্ন থেকেই এই শব্দটি জুড়ে থাকে তাদের সারাজীবন কতটা কষ্ট সহ্য করতে হয়।

প্রতিবন্দী শব্দটা আমাদের শুনতে খুব খারাপ লাগে। কিন্তু যাদের নামের সাথে জন্মলগ্ন থেকেই এই শব্দটি জুড়ে থাকে তার সারাজীবন কতটা কষ্ট সহ্য করতে হয় টা একমাত্র তারাই বুঝে। এরকমি একজন হলো আলিপুরদুয়ার জেলার ফালাকাটা ব্লকের ডালিমপুর গ্রামের মেয়ে অপু ভৌমিক। সে জন্ম থেকেই শারীরিক ভাবে প্রতিবন্দী। তার একটি হাত জন্ম থেকেই নেই। কনুই নিচ থেকে হাত নেই। সরকারি প্রতিবন্দী শংসাপত্র তে তাকে 40% দেখানো হয়েছে।

ছবি- বিদ্যুৎ মিত্র
ছবি- বিদ্যুৎ মিত্র

অপু বীরপাড়া কলেজে বিএ তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। তার বাবা ঊষারঞ্জন ভৌমিক একজন ছোট্ট ব্যাবসায়ী, তার পক্ষে সংসার খরচ সামলে মেয়ের পড়া চালিয়ে যাওয়া খুব কঠিন। তাদের আক্ষেপ তারা কোনো প্রকার সরকারি সুযোগ সাহায্য পাই নি। তার মেয়ে সরকারি সাহায্য থেকে বঞ্চিত।

Apu Bhowmik
Apu Bhowmik

প্রতিবন্দী কোটা অথবা কোনো বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো সাহায্য পেলে খুব উপকৃত হবে। প্রশাসনের লোকজন কেবল আসে শংসাপত্র নিয়ে চলে যাই। কিন্তু সাহায্য অধরা। তাদের আক্ষেপ। স্থানীয় পঞ্চায়েত অফিসে এই বিষয়ে জানা থাকলেও তারা কোনো প্রকার সাহায্য করেননি কোনো অজ্ঞাত কারণে।

আরো আকর্সনীয় আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন BanglarUtsab.co.in আপনার সাথে, আপনার পাশে।