রান্নাবাটি খেলার নাম করে বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন পাঁচ বছরের শিশুকন্যাকে – Banglar Utsab

বিজ্ঞাপন

বাংলার উত্‍সব ডিজিটাল ডেস্ক: রান্নাবাটি খেলার নাম করে বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন পাঁচ বছরের শিশু কন্যাকে। ঘটনাটি ঘটেছে খড়িবাড়ী থানার অন্তর্গত ইন্দো নেপাল সীমান্তে পানিটাঙ্কির গৌরসিং জোত এলাকায়। সূত্রপাত চলতি মাসের ৬ তারিখে। অভিযোগ ৬ তারিখ সকালে পাশের বাড়ির ১৪ বছর বয়সী মানব রায় খেলার নাম করে তাকে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। তারপরই তাকে ধর্ষণ করে। প্রথম অবস্থায় মেয়েটি কিছু জানায়নি বাড়িতে। কিন্তু আস্তে আস্তে শরীরের অবস্থা বেগতিক হতে থাকে। জ্বালা যন্ত্রনায় চিৎকার করে মেয়েটি। বাড়ির লোক শিশুটির কাছে জানতে চাইলে, শিশু সব ঘটনা বাড়ির লোক কে জানায়,পাশের বাড়ির মানব কি পাশবিক অত্যাচার করেছে তার সাথে।

তড়িঘড়ি বাড়ির লোক শিশু টিকে নক্সালবাড়ি প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে ডাক্তার পরীক্ষা করে তাকে রেফার করে দেয় উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। সেখানে টানা সাত দিন চিকিৎসা র পর মোটামুটি সুস্থ হয়ে উঠে সে।এরপরই গতকাল (মঙ্গলবার) খড়িবাড়ী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে তার পরিবার। এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত মানব রায়। তার বাড়ির লোক বলছে তারা জানেন না ছেলে কোথায়। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।খোঁজা হচ্ছে মানব রায় কে। সত্যি সে নিজে থেকে আত্মাগোপন করেছে , না বাড়ির লোক তাকে পাঠিয়ে দিয়েছে অন্য কোথাও তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। যদিও বা গত কয়েক দিন ধরে মানব রায় কে না পাওয়া গিয়ে থাকে তাহলে কেন পুলিশ কে জানায় নি তার পরিবার । এইরকম এক ছেলে কে বাঁচাতে এত টা উদ্যোগী তার পরিবার ?ওপর দিকে প্রশ্ন উঠেছে ধর্ষক নাবালক। বয়স তার মাএ ১৪। ভারতীয় সংবিধান অনুযায়ী কতটা সাজা পাবে সে ? শিশু টির পরিবার ছেলেটির এমন পৈশাসিক আচরণে কঠোর শাস্তির দাবি করছে , কিন্তু ভারতীয় সংবিধান কি তা পারবে,একটি নাবালক কে কঠোর শাস্তি দিতে ?

একাংশের দাবি, এই সব এর মূলে হল মোবাইল, সোশ্যাল মিডিয়া। আজকের সমাজে ছেলে মেয়ে একটু বায়না করলেই বাবা মা হাতে তুলে মোবাইল। সোশ্যাল মিডিয়ায় যুক্ত সর্বদা। ফলে বাজে কাজে লিপ্ত হতে বেশি সময় এর প্রয়োজন নেই , নেই প্রয়োজন বয়সেরও। তাদের বক্তব্য বাবা মা দের সচেতন হওয়া এখনই প্রয়োজন। সময় অনেক পেরিয়ে গেছে।

আকর্ষণীয় আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন BanglarUtsab.co.in আপনার সাথে, আপনার পাশে।

You May Also Like