গতকাল রাতে ঘটে যাওয়া ইভটিজিং কে কেন্দ্র করে ফালাকাটা থানার আই সি বিনোদ গাজমির এসে পৌঁছালেন জটেশ্বর সংলগ্ন প্রমোদনগর গ্রামে।

গতকাল রাতের ঘটনার পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে প্রমোদনগর গ্রামে পৌঁছলো ফালাকাটার আইসি বিনোদ গজমের।

বিদ্যুৎ মিত্র, জটেশ্বর, ১৮ জুলাই ২০১৭ : সোমবার রাতে ইভটিজিং কে কেন্দ্র করে উত্তাল হয় জটেশ্বর। জটেশ্বর পুলিশ পোস্ট ও জনতার মধ্যে খণ্ড যুদ্ধ হয়। উত্তেজিত জনতা বার বার তিন ইভটিজার কে তাদের হাতে তুলে দেওযার দাবি জানাতে থাকে। জটেশ্বর পুলিশ পোস্ট এর ফোনে ফালাকাটা থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ সূত্রে অভিযোগ উত্তেজিত জনতা পুলিশ পোস্ট এ আগুন লাগানোর চেষ্টা করল পুলিশ বাধ‍্য হয়ে মৃদু লাঠি চার্জ করে উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে।

এই রকম পরিস্থিতির মধ্যে আজ ফালাকাটা থানার আই সি বিনোদ গজমের এসে পৌঁছালেন জটেশ্বর সংলগ্ন প্রমোদনগর গ্রামের ঘাটপাড় এলাকায়, অভিযোগকারীর পরিবার গুলির সাথে দেখা করতে, এই খবর পাওয়া মাত্র গ্রামের লোক সেই স্থানে ভিড় জমায়। সকল গ্রামবাসী ও অভিযোগকারী পরিবার গুলিকে নিয়ে এক আলোচনা সভা করেন ফালাকাটা থানার আই সি বিনোদ গজমের।

পুলিশ প্রশাসনের তরফ থেকে তিনি গ্রামবাসীদের অনুরোধ জানান কোনো পরিস্থিতিতে আইন নিজের হাতে না নেবার জন্য, এর পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনের উপর আস্থা রাখতে। পুলিশ সূত্রে জানা যায় নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিস ধৃতদের বিরুদ্ধে আইপিসি ৩২৩,৩২৫,৩৫৪ ও ৩৫৪ সি ধারায় মামলা রুজু করেছে।

ফালাকাটা থানার আই সি বিনোদ গাজমির জানিয়েছেন “ইভটিজারদের মত ঘৃন্য অপরাধীদের কোন ভাবেই রেয়াত করা হবে না। তাই কড়া শাস্তির সুপারিস করেছি।” এলাকার বিধায়ক অনিল অধিকারি মহাশয় জানিয়েছেন “মহিলা ও ছাত্রীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর আমাদের সরকার। পুলিশকে কড়া ব্যাবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। বখাটেপনা কোন মূল্যেই বরদাস্ত করা হবে না”।

এর পাশাপাশি গতকাল রাতের ইভটিজিং এর ঘটনায় আক্রান্ত টোটোচালক ভীত ও সন্ত্রস্ত। গতকালের ঘটনায় এখনো আতঙ্কিত টোটোচালক নৃপেন দাস।জটেশ্বর আশ্রমপাড়ার বাসিন্দা।সাধারন ঘরের লোক, কালকের সন্ধ্যার ঘটনায় তার চোখে মুখে আতঙ্কের ছাপ স্পষ্ট। টোটোচালক আমাদের জানায় যে, “”ছেলেগুলো ছাড়া পাবার পর বদলা নেবার জন্য যদি আমার উপর কোনো রকম হামলা করে তাহলে তখন আমি কোথায় যাবো কি করবো””। তিনি নিজে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তিনি টোটো ইউনিয়ন এর সেক্রেটারিকে এই বিষয়ে লিখিত অভিযোগ জানাবেন ও নিজের নিরাপত্তা ও অন্য টোটোচালকদের নিরাপত্তার বিষয়ে আলোচনা করবেন ও নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার ব্যাপারে আবেদন করবেন।

আরো আকর্সনীয় আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন BanglarUtsab.co.in আপনার সাথে, আপনার পাশে।