উত্তরবঙ্গের মিষ্টি মেয়ে পায়েল মুখার্জির সঙ্গে কিছুক্ষন – BanglarUtsab

পশ্চিমবঙ্গে শিলিগুড়ির মিষ্টি মেয়ে পায়েলের মিডিয়ায় অভিষেক ঘটে থিয়েটার, সিরিয়ালের ছোট ছোট অভিনয়ের মধ্যদিয়ে। হঠাৎ প্রস্তাব পান কলকাতার বি আর -প্রোডাকশন হাউসের রঙ রুট সিনেমার ছোট্ট একটি রোলে। সেটি করে ফেলেন। শৈশব থেকেই যুক্ত ছিল নাচে পরবর্তীতে অভিনয় জগৎ ভালো লাগায় পারি দেন সুদূর কলকাতায় । বর্তমানে তিনি এক্টিং, নাচ ও আঁকড়িঙ এ কাজ করছেন।

বাংলার উৎসবের সাথে একটি ছোট্ট সাক্ষাৎকারে পায়েল জানান, “আমি একদম ছোট্ট থেকে নাচ করতাম। শিলিগুড়ির সারদা শিশু তীর্থে পড়াকালীন দীনবন্ধু মঞ্চ তে পারফর্ম করি। আর ওটাই শুরু। মঞ্চের প্রতি একটা ভালোবাসা প্রকাশ পায় এই দীনবন্ধু মঞ্চ থেকে। এই মঞ্চ আমাকে সকলের সামনে নিজের প্রতিভা জাহির করতে শিখিয়েছে। আর আমার এই জগৎকে ভালোবাসার কারণ আমার মা-য়ের জন্য। আমার মা একজন ভালো সংগীত শিল্পী। আমার কাছে আমার মা সেরা শিল্পী কিন্তু আমাদের বড় করতে গিয়ে শিল্পীর উপাধি-টি পায় নি। তাই সব কিছুই মায়ের জন্য আর বাবা পাশে থেকেছেন, যথেষ্ট সাপোর্ট করে চলেছেন”

প্রতিবেদকআচ্ছা তুমি কিসে কিসে কাজ করেছো ?

পায়েল মুখার্জি: “কলকাতায় বেশ কিছু বাংলা থিয়েটার করেছি। তাছাড়া অনেক সিরিয়াল এ ছোট ছোট অভিনয় করেছি। রূপসী ‘বাংলা চ্যানেল-এ অন্তরাল এ মুখ্য অভিনয় করেছি। তবে সেরকম মাপের কাজ না পাওয়ায় চলে আসতে হয় শিলিগুড়িতে। এখানে আসতেই অভিজিৎ দার সাথে টিভিসি করি। আবার চলা শুরু। তারপর ধীরে ধীরে প্রচুর আঁকড়িঙ এর সুযোগ পাই আর এটার জন্য অভিজিৎ দাকে অসংখ ধন্যবাদ জানাই। “

প্রতিবেদককি ধরণের অভিনয় তোমার বেশি প্রিয় ?

পায়েল মুখার্জি: সব ধরণের। বর্তমানে আমি উত্তরবঙ্গের বান্টি মন্ডল পরিচালিত “তোর অপেক্ষার” একটি সিনেমার স্যুট করছি। এবং আমি খুব সৌভাগ্যবান যে বান্টিদার এই ছবিতে রোল পেয়েছি। খুব ভালো লাগছে করতে, কখনো হাসি, কখনো কান্না ইত্যাদি।

প্রতিবেদকতোমার দুর্বলতা কোথায় ?

পায়েল মুখার্জি: অনেক। ধরে নাও আমার স্কুটি আমার বাবা ছাড়া অন্য কেউ চালাক সেটা আমার পছন্দ নয়। গান শুনলেই অভিনয় বা নাচ করতে ইচ্ছে করে।

প্রতিবেদকতুমি কি তোমার এই ক্যারিয়ার নিয়ে সন্তুষ্ট ?

পায়েল মুখার্জি: অবশ্যই। অনেক কাজ করতে চাই। আর বিশেষ করে মেগা সিরিয়েল করতে চাই।

প্রতিবেদকতুমি তো বেশ ভালোই অভিনয় করেছো, তবে কোন অভিনয় টি তোমার সবচেয়ে বেশি প্রিয় বলে তুমি মনে করো ?

পায়েল মুখার্জি: নাটক করেছি আগেই বললাম। রবী ঠাকুরের রক্তকরবী করেছি। নন্দিনী ক্যারেক্টর এর। ওটাই আমার কাছে বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল।

প্রতিবেদক – আচ্ছা তোমার প্রিয় এক্ট্রেস কে ?

পায়েল মুখার্জি: আমি সবাই কে দেখি। কিন্তু সুচিত্রা সেন , অপর্ণা সেন ,মাধুরী , বিদ্যা বালান , রানী , কঙ্গনা , কারিনা আমার প্রিয়।

প্রতিবেদক – যারা নতুন তাদের জন্য কোনো টিপস একজন সফল অভিনেতা হওয়ার ?

পায়েল মুখার্জি: সাফল্য কি সেটা আমি এখনো জানিনা। জানার চেষ্টা করছি তবে আমি যাদের ফ্যান তাদের জীবনী যখন পড়ছি একটা মিল পাচ্ছি আর সেটা হলো উত্সর্জন। আর হ্যা মনের কোনে জেদ থাকাটা দরকার।

অসংখ্য ধন্যবাদ পায়েল মুখার্জী, তোমার আগামী সিনেমার এবং অন্য কাজের জন্য শুভেচ্ছা রইল বাংলার উৎসব- খবর এর টীম থেকে।

আকর্ষণীয় আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন BanglarUtsab.co.in আপনার সাথেআপনার পাশে। 

You May Also Like